শিরোনাম

ইউএনও’র বদলী ফেরাতে চায় ত্রিশালবাসী

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি   |  ০৮:৩৬, জুলাই ১২, ২০১৯

কর্মের মধ্য দিয়ে সবার মন জয় করে নেয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল জাকিরের বদলী ফেরাতে চায় ত্রিশালের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সুশীল সমাজের লোকজন।

ত্রিশাল উপজেলায় আব্দুল্লাহ আল জাকির ইউএনও হিসেবে যোগদানের পর থেকেই উন্নয়ণে আমূল পরিবর্তন ঘটেছে। তাই ইউনএনও’র বদলীর আদেশ শুনে ভেঙ্গে পড়েছে সাধারন মানুষ।

২০১৮ সালের ৩ আগস্ট ত্রিশাল উপজেলায় ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন আব্দুল্লাহ আল জাকির। আগামী ১৫ জুলাই ইউএনও’র কর্মস্থল ত্যাগ করার কথা রয়েছে।

যোগদানের এক বছর পার হতে না হতেই ইউএনও’র বদলী মানতে পারছেননা সাধারন মানুষ। দ্রুত ইউনও’র বদলী উন্নয়ণে বাধাগ্রস্থ হবে বলে মনে করছেন সুশীল সমাজ।

তাই ইউএনও’র বদলী ঠেকাতে মানববন্ধন, বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার সকালে স্বনামধন্য বিদ্যাপীঠ নজরুল একাডেমীর ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ত্রিশাল উপজেলা ইউএনও আব্দুল্লাহ আল জাকিরের বদলী আদেশ স্থগিতের দাবিতে মানববন্ধন করে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবারও বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে ইউএনও’র বদলী ফেরাতে নানা কর্মসূচি পালন করা হয় ত্রিশালে।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানান, ইউএনও নজরুল একাডেমীকে উন্নয়নের মাধ্যমে আমূল পরিবর্তন ঘটিয়েছে।

আগে নজরুল একাডেমীতে পড়াশোনা করার মতো কোন পরিবেশ ছিলনা।

ইউএনও স্যার নিজে উদ্যোগ নিয়ে বিদ্যালয় সংস্কারের পাশাপাশি পড়াশোনায় আমাদের মনযোগ আনতে ক্লাশও নিয়েছেন।

এছাড়াও তিনি বাল্য বিয়ে প্রতিরোধ এবং সবুজ বনায়নে ত্রিশালকে দারুণ রুপে সাজিয়েছেন।

আমরা চাই এই ইউএনও স্যার ত্রিশাল উপজেলায় আরো দু’বছর থাকুক। তাহলে ত্রিশালে সার্বিক উন্নয়ণ ত্বরাণিত হবে।

জেলা মানবাধিকার নেতা অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম চুন্নু মনে করেন সরকারী কর্মকর্তা স্বাভাবিক ভাবেই বদলী হবে।

রাজনৈতিক নেতাদের পাশাপাশি সামাজিক উন্নয়নে সরকারী কর্মকর্তারাও ভ‚মিকা পালন করে তাকে।

তবে কারো রোষানলে পরে কোন সরকারী কর্মকর্তার বদলী কাম্য নয় বলে মনে করেন তিনি।

ইউএনও আব্দুল্লাহ আল জাকির বলেন, আমি একজন সরকারের কর্মকর্তা বদলী হবো সেটাই স্বাভাবিক।

হয়তো আমি ভালো কিছু করেছি তাই ত্রিশালবাসী আবেগ নিয়ে কর্মসূচি পালন করছে। আমি চাইনা আমার জন্য কেউ রাস্তায় নামক।

এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত