শিরোনাম

কোরবানি ঈদে সড়ক পথে ১৮৫ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ০১:৪৯, আগস্ট ২৫, ২০১৯

এবার কোরবানির ঈদের ছুটিতে সারাদেশে সংগঠিত ১৩৫টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১৮৫ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও ৩৫৫ জন।

গেল ১০ থেকে ১৮ আগস্ট এই নয়দিনে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় সড়ক দুর্ঘটনায় এসব হতাহতের ঘটনা ঘটে বলে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর পর্যবেক্ষণে উঠে এসেছে।

শনিবার (২৪ আগস্ট) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে ঈদুল আজহায় সংগঠিত সড়ক দুর্ঘটনার পর্যবেক্ষণ জানাতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)।

সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শামীম আলম দীপেন-এর সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্টা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ম. হামিদ ও বিআরটিএর সাবেক চেয়ারম্যান আয়ুবুর রহমান খান, নিসচার যুগ্ম-মহাসচিব বেলায়েত হোসেন খান নান্টু সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনে মূল প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব লিটন এরশাদ।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয় যায়, চলতি বছর ঈদুল ফিতরের তুলনায় ঈদুল আজহায় সড়ক দুর্ঘটনা কিছুটা বেশি। ঈদুল ফিতরে দুর্ঘটনার সংখ্যা ছিল ১২৭। ওই সময় নিহত হন ১৮৪ জন এবং আহত হন ৩৩২জন।

বিভিন্ন পত্রিকা, পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ, স্বতন্ত্র অনলাইন নিউজ পোর্টাল, সংবাদ সংস্থা ও টেলিভিশন চ্যানেলের তথ্য-উপাত্তের ওপর ভিত্তি করে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।

বিশেষ করে নিসচার সারাদেশের ১২০টি শাখা সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাধ্যমেও সড়ক দুর্ঘটনার তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে সেগুলো পর্যালোচনা ও যাচাই-বাছাইয়ের পর এই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।

পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, ঈদুল ফিতরের তুলনায় ঈদুল আজহায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা কিছুটা কমেছে। তবে বেড়েছে বাস দুর্ঘটনার সংখ্যা। এবার ৪০টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মারা গেছে ২৯ জন (চালক ও আরোহী)।

ঈদুল ফিতরে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনার সংখ্যা ছিল ৪৫ এবং নিহতের সংখ্যা ছিল ৩৮। দুর্ঘটনায় হতাহতদের বেশির ভাগই তরুণ। আর তাদের মধ্যে প্রতিযোগিতার মনোভাবই দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ বলে দেখছে নিসচা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত