শিরোনাম

ফকিরের কেরামতি

স্পোর্টস ডেস্ক  |  ২০:৩৬, জুন ২০, ২০১৯

আগে চাকরি ছিল সোনার হরিণ। এখন বোলারদের জন্য উইকেট। এ বিশ্বকাপে অন্তত সেটিই দেখা যাচ্ছে। ব্যাটসম্যানরা যেন আঠার মতো সেঁটে যাচ্ছেন ক্রিজে।

নিজেদের ৬ষ্ট ম্যাচে ঠিক এমনটিই দেখল টাইগাররা। অজিদের ১ম উইকেট পড়ল ২০ তম ওভারে। ১২১ রানের মাথায়। পরের উইকেট পড়েছে ২৪ ওভার পর। মানে ৪৪ তম ওভারে।

এমন উইকেট খরার ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া পৌঁছে গেল রানের অ্যাভারেস্টে। ৫ উইকেটে ৩৮১। বাংলাদেশকে জিততে হলে করতে হবে ৩৮২ রান।

এতবড় স্কোর পার করে জেতার রেকর্ড এখনো নেই বাংলাদেশের। এবার হবে কিনা সেটা জানা যাবে ঘণ্টা চারেক পর।

টস হেরে বোলিংয়ে নেমে মাশরাফি সাকিবরা একের পর এক বল ডেলিভারি দিচ্ছেন। কিন্তু উইকেটের দেখা নেই। কাটার মোস্তাফিজ, রুবেল হোসেন, মেহেদি মিরাজ কেউ কাজে আসছে না। সবার বলই দেখে শুনে ভালো খেলছেন ফিঞ্চ-ওয়ার্নার। তবে এমন সঙ্কটে যেন ত্রাতা সেজে এলেন সৌম্য সরকার।

মূলত ব্যাটসম্যান সৌম্য যেন কেরামতি নিয়ে এলেন বোলিংয়ে। নিজের প্রথম ওভারেই পেলেন অ্যারন ফিঞ্চের উইকেট। তারপর বিধ্বংসী ওয়ার্নারের উইকেটও নিলেন সেই সৌম্যই। যখন তিনি পৌঁছে গেছেন ১৬৬ রানে।

৪৭ তম ওভারে বল করতে এসে ফের সাফল্য পেলেন স্যেম্য। তার বল খেলতে গিয়েই শিকার ম্যাক্সওয়েল শিকার হলেন রান আউটের। একই ওভারের পঞ্চম বলে তুলে নিলেন উসমান খাজার উইকেট। তিনি করেছেন ৮৯ রান।

শেষদিকে শুধু একটি উইকেট পেলেন মোস্তাফিজ। স্টিভেন স্মিথকে ১ রানের মাথায় এলবিডব্লিউ করেন।

সৌম্য সরকার মূলত ব্যাটসম্যান। আর পার্টটাইমার বোলার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এর আগে মাত্র ১ টি উইকেট পেয়েছিলেন।

ইএসপিএন ক্রিকইনফো বলছে, সৌম্য ৪৪ ওয়ানডে খেলা সৌম্য মাত্র ৯ ইনিংসে বল হাতে নিয়েছিলেন। ১৩৮ রান দিয়ে পেয়েছেন ১ টি উইকেট। সেই সৌম্য কিনা বিশ্বকাপের এক ম্যাচে নিজের ঝুলিতে ফেললেন ৩ উইকেট।

বল হাতে একে একে যখন সবাই ব্যর্থ তখন অধিনায়ক মাশরাফি সৌম্যকে ডাকলেন। তুলে দিলেন বল। তিনি যেন আস্থা দেখালেন অধিনায়কের ডাকে। একে একে তুলে নিলেন ৩ উইকেট। রান আউটের উইকেটটি ধরলে চারটি।

অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ ম্যাচে সৌম্যই সফল বোলার। এবার দেখার পালা ব্যাট হাতে কোনো কেরামতি দেখাতে পারেন কিনা। দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছাতে পারেন কিনা। টাইগারদের সেমিতে পৌঁছতে আজকের জয়টা যে খুবই জরুরি।

আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত