শিরোনাম

বিভিন্ন পর্নসাইটে তাদের আপত্তিকর ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদক  |  ১৩:০৯, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯

বরগুনার বহুল আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার বাদি থেকে আসামী হয়ে যাও আয়শা সিদ্দিকা ওরফে মিন্নি ও তার কথিত প্রেমিক নয়ন বন্ডের নামে একটি আপত্তিকর ভিডিও শত শত পর্ন ওয়েবসাইট ছড়িয়ে পড়েছে।

ইন্টারনেটভিত্তিক কয়েকটি সার্চ ইঞ্জিনের সহায়তায় দেখা যায়, দুই মিনিট ২২ সেকেন্ডের ভিডিওটির শিরোনামে প্রায় সবাই বাংলাদেশি মিন্নি ও নয়ন বন্ডের নাম ব্যবহার করা হয়েছে।

পর্নসাইট ছাড়াও ওই ভিডিওটির অংশবিশেষ (কাটপিস) সামাজিকমাধ্যম ইউটিউব ও ফেসবুকেও শেয়ার করা হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন নামিদামি পর্নসাইটে ভিডিওটি আপলোড করা হয়েছে বেশ কয়েকদিন আগে। এসব সাইটে ভিন্ন ভিন্ন শিরোনাম ব্যবহার করা হয়েছে। তবে ভিডিওটি মিন্নি এবং নয়নের কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

গণমাধ্যমের খবরে উঠে এসেছে, নিহত নয়ন বন্ডের সঙ্গে মিন্নির শারীরিক সম্পর্ক থেকে বিয়ে হয়। এমনকি রিফাতের সঙ্গে বিয়ের পরও মিন্নি নয়ন বন্ডের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক বজায় রেখেছেন। নয়ন মাঝে-মধ্যে দু’জনের একান্ত সময়ের ভিডিও ও ছবি ধারণ করতো।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন বরগুনা জেলা শহরের কলেজ রোডে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয় রিফাতকে। ওই ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে নিন্দার ঝড় নামে। এরপর ২ জুলাই এ হত্যা মামলার প্রধান সন্দেহভাজন সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন।
এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে মামলায় ১ নম্বর সাক্ষী করা হয়।

কিন্তু মিন্নির শ্বশুরই পরে হত্যাকাণ্ডে পুত্রবধূর জড়িত থাকার অভিযোগ তোলেন। এরপর ১৬ জুলাই মিন্নিকে বরগুনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। পরে সেদিন রাতে তাকে রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। হাইকোর্ট থেকে শর্তসাপেক্ষে জামিন পান মিন্নি।
রিফাত হত্যায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ছয় কিশোর অপরাধী শিশু-কিশোর সংশোধনাগারে রয়েছে। মিন্নি ছাড়া আরও একজন জামিনে রয়েছেন।

এমএআই

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত