শিরোনাম

মহাবিপদে ফেসবকু!

প্রযুক্তি ডেস্ক   |  ০১:৪১, অক্টোবর ০৩, ২০১৯

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) এর রায়ের পর মহা বিপদে পড়তে যাচ্ছে ফেসবুক। এমনিতেই নানা অভিযোগে বিপর্যস্ত যোগাযোগের এ কোম্পানি। তার ওপর মানহানিকর পোস্টের জন্য এখন থেকে বড় ধরনের সমস্যা পড়তে হতে পারে ফেসবুককে।

জানা গেছে, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) কোনো দেশে কোনো পোস্ট ‘অবৈধ’ কিংবা ‘মানহানিকর’ বিবেচিত হলে পৃথিবীর অন্য দেশ থেকেও একই ধরনের পোস্ট ডিলিট করতে হবে ফেইসবুককে। ব্যবহারকারীদের রিপোর্টের অপেক্ষায় না থেকে ফেইসবুকসহ অন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্রতিষ্ঠানকে খুঁজে খুঁজে এসব কাজ করতে হবে।

ইইউর সর্বোচ্চ আদালত থেকে বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) এমন রায় এসেছে।

বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ইতিহাসে এটি ‘যুগান্তকারী’ রায়। যদি শেষ পর্যন্ত এ সিদ্ধান্ত বহাল থাকে তবে ফেসবুক-টুইটারের মতো প্রতিষ্ঠান বাড়তি ঝামেলায় পড়ে যাবে।

তবে ইইউ এর এমন সিদ্ধান্তের সমালোচনা হচ্ছে। ফেসবুকের একজন মুখপাত্র বলেছেন, এই রায় মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিল।

ইইউর আইন অনুযায়ী, ফেইসবুকসহ অন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের বাজে মন্তব্যের দায় প্রতিষ্ঠানগুলোর ঘাড়ে পড়ে না। বিষয়টি সম্পর্কে রিপোর্ট হওয়ার পর তাদের দায়িত্বের প্রশ্ন আসবে এবং দ্রুততম সময়ে ডিলিট করতে হবে।

এই আইন নিয়ে প্রশ্ন ওঠার পর অস্ট্রিয়ার সুপ্রিম কোর্ট ইউরোপের সর্বোচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়। বৃহস্পতিবারের রায়ে তিনটি বিষয় পরিষ্কার করা হয়। এগুলো হলো-

১. ইইউ’র কোনো দেশের আদালত কোনো পোস্টকে ‘অবৈধ’ বললে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোকে সেটি ডিলিট করতে আদেশ দিতে পারবে।

২. একই ধরনের অন্য পোস্টও মুছে ফেলার আদেশ দেয়া হতে পারে।

৩. প্রাসঙ্গিক কোনো আন্তর্জাতিক আইন বা চুক্তি থাকলে মাধ্যমগুলোকে অন্য দেশ থেকেও অবৈধ পোস্ট মুছে ফেলতে হতে পারে।

এই রায়ের বিরুদ্ধে ফেইসবুক কোনো আপিল করতে পারবে না বলে জানিয়েছে বিবিসি।

এ বিষয়ে এসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর স্টিভ পিয়ার্স বলছেন, যদি আদালত বলে এই পোস্টে কোনো ব্যক্তির মানহানি হয়েছে, তাহলে ফেসবুককে একই ধরনের অন্য পোস্ট, সেটা যে দেশেই হোক না কেন খুঁজে বের করতে হবে।

ফেসবুক বলছে, এই রায়ের যুক্তি নেই। কারণ একটি দেশ অন্য দেশের আইন সম্পর্কে এভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারে না।

আরআর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত