শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

১১ আশ্বিন ১৪২৭

ই-পেপার

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ)

ফেব্রুয়ারি ২২,২০২০, ০৩:৫৩

ফেব্রুয়ারি ২২,২০২০, ০৩:৫৩

কুচিয়ামোড়া-সৈয়দপুর সড়কে বন্ধ হচ্ছে না ডাকাতি

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার কুচিয়ামোড়া-সৈয়দপুর সড়কের সৈয়দপুর কান্তা নামক এলাকায় প্রতিবছরই ঘটছে ডাকাতির ঘটনা। এই সড়কে জনসাধারণ ও গাড়ি চালকরা আতংকে চলাফেরা করছে। বিশেষ করে রাতে গাড়ি চালকরা ডাকাতের ভয়ে গাড়ি চালাতে ভয় পাচ্ছে।

সর্বশেষ বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০ টার সময় সৈয়দপুর কান্তা নামক স্থানে ১০/১৫ জনের ডাকাত দল রাস্তায় বেরিকেড দিয়ে ৩ টি সিএনজি ১ টি প্রাইভেট,৫ টি মোটর সাইকেল,২ টি অটোরিকসা আটক করে যাত্রী ও চালকদের কাছ থেকে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে প্রায় ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ও ১৫ টি মোবাইল ছিনিয়ে নেয় ডাকাতরা।

ডাকাতির সময় সিএনজির যাত্রী রাজানগর ইউনিয়নের যুবলীগের সভাপতি মো.হোসেন আলী খান জানান,‘বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে ১০/১৫ জনের ডাকাত দল মুখোশ পড়ে ওদের সবার হাতে থাকা রামদার ভয় দেখিয়ে আমাদের জিম্মি করে আমার কাছ থেকে ৫২ হাজার নগদ টাকা মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। প্রায় ঘন্টা খানেকের মত ওরা আমাদের জিম্মি করে রাখে। আমার টাকা ও মোবাইলসহ প্রায় ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ও ১৫ টি মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।’

কুচিয়ামোড়া-সৈয়দপুর সড়কের সিএনজি চালক মো.সাইদুল ইসলাম জানান, ‘আমরা এই সড়কেই গাড়ী চালাই রাতে টহল দেওয়ার জন্য পুলিশকে একটি করে সিএনজি দেই কিন্তু পুলিশ সিএনজি নিয়ে আমাদের এখানে টহল না দিয়ে অন্য জায়গায় টহল দেয়, প্রায় এই এলাকাতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। পুলিশের টহল জোরদার হলে আমরা শান্তিতে গাড়ী চালাতে পারতাম।’

উপজেলার শেখরনগর তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো.সাইফুল ইসলাম সবুজ জানান, গত ১ বছর এখানে ডাকাতি বন্ধ ছিল কিন্তু বৃহস্পতিবার রাতে আকর্ষিক ভাবে ডকিাতির ঘটনাটা ঘটেছে। ঘটনাস্থলের কাছাকাছি আমাদের পুলিশ টহলও ছিল। এখনও কেউ কোনো অভিযোগ করেনি।

উপজেলার রাজানগর ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেন হাদী জানান, এখানে বৃট্রিশ আমল থেকেই ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। আমার পরিষদ থেকে সৈয়দপুর-কুচিয়ামোড়া সড়কের ডাকাতি কবলিত এলাকায় ১১ টি সোলার স্টিক লাইটও দিয়েছি তারপরও ডাকাতি বন্ধ হচ্ছে না। আমি নিজেও আতংকের মধ্যে এই রাস্তায় চলাফেরা করি।

আমারসংবাদ/এমআর