বৃহস্পতিবার ০৪ জুন ২০২০

২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

থানচি (বান্দরবান) প্রতিনিধি

এপ্রিল ০৪,২০২০, ০৫:৩৪

এপ্রিল ০৪,২০২০, ০৫:৩৪

থানচিতে সরকারি ত্রাণ না পাওয়ার অভিযোগ

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুসারে করোনা ভাইরাসের কারনে কর্মহীন হয়ে পরা পরিবার সমূহকে উপজেলা প্রশাসন পক্ষ থেকে সরকারি খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়া ত্রাণ সামগ্রী বান্দরবানের থানচিতে এখনো কর্মহীন দিনমজুর মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছাইনি বলে কিছু কর্মহীন দিনমজুর মানুষের কাছে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এমনিই একজন অভিযোগকারী হলেন, থানচি বলিপাড়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের হয়তং পাড়া কারবারী লুফ্রা খুমী (৬০) তিনি বলেন, উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিভিন্ন পাড়ায় ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়ার কথা শুনলেও বাস্তবে আমরা এখনো কোন ধরনের ত্রাণ সামগ্রী পাইনি। আমরা কেমন আছি, কিভাবে আছি কোন জনপ্রতিনিধি আমাদের খোঁজ-খবর পর্যন্ত নেয়নি। বাস্তবে আমরা কোন সরকারি ত্রাণ সামগ্রী পাব কিনা তাও কিছুই জানি না।

পাড়াবাসী নাহই খুমী (৩২) বলেন, আমাদের পাড়ায় ২০ পরিবার রয়েছে। সবাই গরীব অসহায় খেতে খাওয়া মানুষ কাজ না থাকায় আমিসহ আমরা এখন খেয়ে নাখেয়ে ছেলে-মেয়েদের নিয়ে অনেক কষ্টের দিন কাটাছি।

থানচি বলিপাড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের কমলা বাগান ত্রিপুরা পাড়া সতিরাং ত্রিপুরা (৭০) বলেন, আমি দিন মজুর করে চলি, আমার প্রতিবন্ধী স্ত্রী ও ১ছেলে-মেয়েকে চালাতে হয়, এখন কাজকর্ম নাই খাওয়া-দাওয়া নাই বললে চলে ঘরে বসে আছি। প্রতিবেশিদের কাছে ধার নিয়ে আর কতদিন চলব। করোনা কি আমি বিশেষ কিছু জানি না, সরকারিভাবে ত্রাণ সামগ্রী দেয়া না হলে করোনা আসার আগেই আমার পরিবার আগেই ভাতে মরে যাবে।

একই পাড়া ফিলিপ ত্রিপুরা(৪০) বলেন, আমাদের পাড়ায় ২৬ পরিবার রয়েছে, ৩/৪ পরিবার ছাড়া বাকী সবাই গরীব দিন মজুর, দিনে আনে দিনে খায়। এখন কাজকর্ম নেই ধার নিয়ে চলছি, আর কতদিন চলবে এভাবে। এখনো পর্যন্ত সরকারি-বেসরকারি ভাবে আমরা কোন ধরণের ত্রাণ পাইনি, উপজেলা প্রশাসন ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের প্রতি আমাদের আবেদন যে অতিসত্বর সরকারি ত্রাণ এই অসহায়দের মাঝে পৌঁছে দেয়া হক।

ত্রাণ বিষয়ের খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ইতোপূর্বে বান্দরবান জেলা প্রশাসক কার্যালয় হতে ৫.০০ মেঃ টন চাউল ও নগদ ৩৫ হাজার টাকা, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর ফাউন্ডেশন হতে নগদ ৫০ হাজার টাকা সহ অন্যান্য সামগ্রী ও বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ থেকে ১৪.৪০ মেঃ টন চাউল সহ অন্যান্য ত্রাণ সামগ্রী এই উপজেলায় প্রদান করা হয়েছে।

এই বিষয়ে বলিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে যোগাযোগ হলে তিনি বলেন, জেলা পরিষদ থেকে প্রাপ্ত ত্রাণ আজ ১ ও ৩ নং ওয়ার্ডের ১০০ জন কে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের কাজ শুরু করেছি। পরবর্তীতে পর্য্যায়ক্রমে সব ওয়ার্ডের ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হবে।

ত্রাণ না পাওয়ার অভিযোগের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আরিফুল হক মৃদুল সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, মূলত ত্রাণ সবার জন্য নয়, শুধুমাত্র করোনা পরিস্থিতির কারণে কর্মহীন হয়েছেন তাদের জন্য বিশেষ করে যে মানুষ কর্মহীন দিন মজুর। এখন উপজেলা প্রশাসন পাশা পাশি ইউনিয়ন পরিষদকেও ত্রাণ বিতরণের ভার দেয়া হয়েছে। এখন বান্দরবান জেলা পরিষদের ত্রাণ বিতরণ চলছে। স্থানীয় ভাবে ইউনিয়ন পরিষদের সাথে যোগাযোগ করলে ত্রাণ অসহায় দেয়া হবে।

আমারসংবাদ/কেএস