সোমবার ০৬ এপ্রিল ২০২০

২৩ চৈত্র ১৪২৬

ই-পেপার

নিজস্ব প্রতিবেদক

মার্চ ০৬,২০২০, ০৪:২৪

মার্চ ০৬,২০২০, ০৪:২৮

কমল পেঁয়াজ-রসুনের দাম

দেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে। ভারত রপ্তানি বন্ধের আদেশ তুলে নেয়ার পর থেকেই এ প্রবণতা দেখা যাচ্ছে বাজারে।  

ব্যবসায়ীরা বলছেন, ১৫ মার্চ থেকে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি শুরু হলে দাম আরও কমবে।  

ঢাকার কাজীপাড়ায় ভ্রাম্যমাণ বিক্রেতারা প্রতি কেজি দেশি ও মিয়ানমারের পেঁয়াজ ৮০ এবং দেশি রসুন ৮০ টাকা দরে বিক্রি করছিলেন।

বাজারে ঢুকে দেখা গেল, বিক্রেতারা সব কটি পণ্যের দামই ১০০ টাকা চাইছিলেন। তবে দর-কষাকষি করে কিছুটা কমানো যাচ্ছিল।

ঢাকার কারওয়ান বাজারে দেখা যায়, পাইকারি বাজারে (৫ কেজি কেনা যায়) দেশি পেঁয়াজের কেজিপ্রতি দর ৭০-৭২ টাকা, মিয়ানমারের ছোট পেঁয়াজ ৭৫ টাকা ও  বড় পেঁয়াজ ৭২ টাকা দরে বিক্রি করছেন বিক্রেতারা।

বাজারে এখন মূলত মিয়ানমারের পেঁয়াজই সবচেয়ে ভালোমানের এবং বেশি বিক্রি হচ্ছে।

দুই সপ্তাহ আগেও এ পেঁয়াজের কেজি ১৪০ টাকা ছিল।

পেঁয়াজ রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার। বাম্পার ফলনের পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

দেশটির খাদ্য ও ভোক্তাবিষয়ক মন্ত্রী সম্প্রতি গণমাধ্যমকে জানান, গত বছরের তুলনায় মার্চে ৪০ লাখ টন বেশি পেঁয়াজ উৎপাদনের আশা করা হচ্ছে। এ অবস্থায় নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়া হলে কৃষকেরা ভালো দাম পাবেন। টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে, বাজারে রসুনের দামও কমেছে। নতুন মৌসুমের দেশি রসুন ক্রেতারা এখন ৮০ থেকে ১০০ টাকা কেজির মধ্যেই ক্রয় করতে পারছেন।

আমারসংবাদ/এমএআই