বুধবার ০৩ জুন ২০২০

১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ই-পেপার

গবি প্রতিনিধি

মে ২০,২০২০, ০২:১৬

মে ২০,২০২০, ০২:১৬

একতরফা সিদ্ধান্তে ইন্টার্ণ চিকিৎসকদের ভাতা কর্তন!

সাভারের গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজের বিরুদ্ধে না জানিয়ে একতরফাভাবে একদিনের বেতন, ভাতা কেটে নেয়ার অভিযোগ করেছে প্রতিষ্ঠানটির ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। একইসাথে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে বেতন প্রদানে নিয়মিতভাবে বিলম্বের অভিযোগও করেন তারা।

বুধবার (২০ মে) নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ইন্টার্ন চিকিৎসক অভিযোগ করে জানান, 'এপ্রিল মাসের ভাতা মে মাসের ১৮ তারিখে দেওয়া হয়েছে। প্রতিমাসেই সময় মতো কোনো চিকিৎসকের বেতন পরিশোধ করে না কর্তৃপক্ষ। বেতন তুলতে গিয়ে দেখি সবার একদিনের বেতন কর্তন করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে নিজেদের জীবন ঝুকিতে রেখে আমরা প্রতিদিন ডিউটি করে যাচ্ছি। হাসপাতালে আগত প্রত্যেক রোগীকে সেবা দিয়ে যাচ্ছি।'

তিনি আরও বলেন, চিকিৎসকদের রমজান বা ঈদ উপলক্ষ্যে কোনো প্রণোদনার চিন্তা না করেই কর্তৃপক্ষ নিজের ইচ্ছায় আমাদের বেতন কেটে রেখেছে। আমাদের হাতে বেতনের সম্পূর্ণ টাকা তুলে দিয়ে ত্রাণের জন্যে সহযোগিতা চাইলে আমরা মন খুলে আরও বেশি সহযোগিতা করতাম। কারণ, করোনা পরিস্থিতির প্রথম থেকেই আমরা চিকিৎসকরা নিজেদের অর্থায়নে ত্রাণ বিতরণ করে যাচ্ছি। পূর্বে অবহিত না করেই প্রতিষ্ঠানের এমন সিদ্ধান্তে খুশি হতে পারছেন না কেউই বলে জানান তিনি।

মেডিকেল কলেজ সূত্রে বেতন কর্তনের কারণ হিসেবে বলা হয়, করোনায় কর্মহীন মানুষদের সাহায্য করার লক্ষ্যে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে সহায়তা করার উদ্দেশ্যেই শিক্ষক, কর্মকতা-কর্মচারী সহ ইন্টার্ণ চিকিৎসকবৃন্দের একদিনের বেতন, ভাতা কর্তন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. ফরিদা আদিব খানম বলেন, 'চিকিৎসকদের অভিযোগ করার কিছু নেই। যদিও আগে থেকে তারা জানতেন না। কিন্তু আমরা পরে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই টাকা করোনা তহবিলের জন্য গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রকে দেয়া হবে।'

প্রতিষ্ঠানের এমন সিদ্ধান্তে বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগীয় প্রধান ডা: শাকিল মাহমুদ বলেন, 'আমার মতে অত্যন্ত সুন্দর কাজ করা হয়েছে। এ সময়টাতে সবার সবাইকে সাহায্য করা উচিত। যে টাকা কাটা হয়েছে সেটা কমই হয়েছে। আরো বেশি টাকা কর্তন করলেও আমি অখুশি হতাম না। এই রমজানে এক কাজে দ্বিগুণ সওয়ারের ভাগীদার হতে পারবো।'

চিকিৎসক সূত্র মারফত জানা যায়, পূর্বেও ছবি প্রতিযোগিতার কথা বলে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বেতন কর্তন করা হয়েছিল। কিন্তু প্রতিবাদের মুখে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ।

আমারসংবাদ/কেএস