শুক্রবার ১০ জুলাই ২০২০

২৫ আষাঢ় ১৪২৭

ই-পেপার

নওগাঁ প্রতিনিধি

মার্চ ১৩,২০২০, ১০:৫৭

মার্চ ১৩,২০২০, ১১:০২

৪৫ বছর চুল কাটেননি, তেলও দেননি তিনি!

নাম তার জহির উদ্দিন। তার বাড়ি নওগাঁর রানীনগর উপজেলায়। আনালিয়া খলিসাকুড়ি গ্রামের মৃত মছির উদ্দিনের ছেলে জহির উদ্দিন (৬৭) এখন বয়সের ভারে কিছুটা কাতর।

শারীরিক শ্রম দিয়ে টাকা পয়সা উপার্জনের ক্ষমতা প্রায় শূন্যের কোঠায়। তারপরও বঙ্গবন্ধুকে বিরল ভালোবাসার টানে সুযোগ পেলেই ভালো ভালো কাজ করেন।

বঙ্গবন্ধুর সব খুনির বিচার হওয়ার জন্য চুল না কেটে ৪৫ বছর ধরে অপেক্ষা করে আছেন তিনি। অবিশ্বাস্য হলেও এমনটাই করেছেন জহির। শুধু চুল নয়, এসময় পর্যন্ত তিনি মাথায় তেল দেননি, চুলে চিরুনিও লাগাননি।

জহির উদ্দিন বাস করেন একটি মাটির ঘরে। তার শয়ন ঘরের চারদিকে বঙ্গবন্ধুর ছবি এবং আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মসূচির ব্যানার পোস্টার দিয়ে সাজানো।

এখনো তিনি বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য কামনা করে সাধ্যমতো দোয়া মাহফিল করেন। তার আফসোস, মুক্তিযোদ্ধা হয়েও সংশ্লিষ্ট কর্তাব্যক্তিদের সেলামি দিতে না পারায় মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সরকারি কোনো সুযোগ সুবিধা পাননি।

শারীরিক শ্রম দিয়ে টাকা পয়সা উপার্জনের ক্ষমতা প্রায় শূন্যের কোঠায়। তারপরও বঙ্গবন্ধুকে বিরল ভালোবাসার টানে সুযোগ পেলেই ভালো ভালো কাজ করেন।

জানা গেছে, দেশ স্বাধীন হওয়ার বিপথগামী সেনা সদস্যের হাতে বঙ্গবন্ধু সপরিবারে খুন হওয়ায় রাগে ক্ষোভে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হন জহির।

জানা গেছে, উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকার মধ্যে ক্রমিক নম্বর ৫৯ জহির উদ্দিনের নাম থাকলেও রহস্যজনক কারণে সরকারিভাবে কোনো সুযোগ-সুবিধা তার ভাগ্যে জোটেনি।

নিজের পৈতৃক কোনো জমাজমি না থাকলেও ঘরজামাই থাকার সুবাদে তার শ্বশুর একখণ্ড জমি দিলে, সেখানে মাটির দেয়াল তুলে কোনোরকমে রাত কাটিয়ে চলেছেন জহির উদ্দিন।

আমারসংবাদ/এসটিএমএ